বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১:১০ অপরাহ্ন

আজ তরুণ সাংবাদিক উদয়ের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী

  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আজ  ১৪ই সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়া তরুণ সাংবাদিক, রাজনৈতিক কর্মী, বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সদস্য রেফাতুল ইসলাম উদয়ের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী। গতবছর ১৩ সেপ্টেম্বর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার রসুলপুরে বন্ধুদের সাথে ঘুরতে গিয়ে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় মারাত্মকভাবে মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হন উদয়। পরদিন রাত সাড়ে নয়টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিলো মাত্র ত্রিশ বছর। তাকে তার গ্রামের বাড়ি আখাউড়ার গঙ্গাসাগর গ্রামে দাফন করা হয়। তার এই অকাল মৃত্যুতে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার শোকের ছায়া নেমে এসেছিলো। মৃত্যুকালে তিনি বাবা-মা ও ভাই, স্ত্রী ও এক পুত্র সন্তান সহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। উদয়ের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনা করে সকলের কাছে দোয়া চেয়েছে শিশু কিশোর সংগঠন “ঝিলমিল একাডেমি” ব্রাহ্মণবাড়িয়া।

উল্লেখ্য রেফাতুল ইসলাম উদয় ২০০৮ সালে সর্ব প্রথম শিশু-কিশোর সংগঠন ঝিলমিল একাডেমি থেকে সাংগঠনিক কাজ শুরু করেন এবং আমৃত্যু ঝিলমিলের একাডেমির বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। শিশু সংগঠন ঝিলমিল এর প্রতিষ্ঠাকালিন সময় থেকে এর সদস্য, বিভাগীয় সম্পাদক, পরিচালক ও নাট্যকর্মী হিসেবে কাজ করেছে। ঝিলমিল একাডেমি ছারাও তিনি ন্যাশনাল চিলড্রেন ট্রাকফোর্স (এন.সি.টি.এফ) এর জেলা কমিটির সাবেক সহ-সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সদস্য, ব্রাহ্মণবাড়িয়া যুব রেড ক্রিসেন্টের সাবেক সদস্য ও “প্রগতি পরিষদ” নামে একটি সামাজিক সংগঠনের সভাপতি ছিলেন।

এছাড়ও কয়েকটি টিভি চ্যানেলের ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার ক্যামেরা পারসন সহ স্থানীয় কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমে কাজ করেছে। একসময়ের ছাত্রলীগ কর্মী ও পরবর্তীতে যুবলীগের কর্মী হিসেবেও সক্রিয় ছিলেন তিনি। উদয় লেখাপড়া করেছে নিয়াজ মোহাম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়, ব্রাহ্মণবাড়িয়া আইডিয়েল হাই একাডেমি ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া উম্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ে। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত একটি অনলাইন সংবাদ মাধ্যম, একটি হাসপাতাল ও ইন্সুরেন্স কোম্পানিতে কর্মরত ছিলেন তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

এ জাতীয় আরো খবর..

পেছনের বিজ্ঞাপন-